সোনার বাংলা গড়তে হলে মুজিব আদর্শ ধারণ করতে হবে—-আলী আজম মুকুল এমপি

ভোলা প্রতিনিধিঃ
জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলো মহাকাব্যের মহাকবি। ৭ মার্চের সেই ঐতিহাসিক ভাষণটি বাঙালী জাতিকে উ্জ্জীবিত করেছে।প্রেরণা যুগিয়েছে অধিকার আদায়ের আন্দোলনে।যা আজকে ইউনেস্কো কর্তৃক স্বীকৃত। এ মহা নায়কের রেখে যাওয়া বাংলাকে সোনার বাংলায় রুপান্তর করতে হলে আমাদেরকে অবশ্যই মুজিব আদর্শ বুকে ধারণ করে এগুতে হবে। ভোলা -২ আসনের সংসদ সদস্য আলী আজম মুকুল সোমবার সকালে বোরহানউদ্দিন উপজেলা প্রশাসন কর্তৃক আয়োজিত মাসিক আইন শৃঙ্খলা সভা ও “সমৃদ্ধির অগ্রযাত্রায় বাংলাদেশ”শীর্ষক প্রচার কার্যক্রমের আওতায় মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন। তিনি আরও বলেন,১৯৪৭ সালে দেশ ভাগ হবার পর দীর্ধ ২৭ বছর আমরা পরাদিন ছিলাম।জাতির পিতার নেতৃত্বে অনেক আন্দোলন,সংগ্রাম আর ৩০ লাখ শহীদের রক্তের বিনিময়ে আমরা একটি রাষ্ট্র পেয়েছি। এ মহান নেতা মুক্তিকামী মানুষের পক্ষে আমৃত্যূ লড়াই করে গেছেন। আজ তার সুযোগ্য কন্যা বিশ্ব মানবতার মা জননেত্রী শেখ হাসিনা রাষ্ট্র পরিচালনা করছেন।তিনি সুনির্দিষ্ট লক্ষ্য সামনে রেখে দেশ পরিচালনা করছেন।আজ আমাদের মাথাপিছু আয় ১৯০২ ডলার।দারিদ্রতার হার কমছে।তিনি বলেন,ইতিমধ্যে প্রধানমন্ত্রী ঘোষণা করছেন,মুজিব বর্ষে কোন লোক গৃহহীন হয়ে থাকবে না।তাই প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া ঘরগুলো যাতে দরিদ্র ব্যক্তিরাই পান সে বিষয়টি খেয়াল রাখার জন্য প্রশাসনকে নির্দ্দেশ দেন।তিনি বর্তমান সরকারের বিভিন্ন উন্নয়নের পরিসংখ্যান তুলে ধরে বলেন,বর্তমানে প্রায় ১কোটি শিক্ষার্থীকে উপবৃত্তি দেওয়া হয়।নারীর ক্ষমতায়ন সহ নারী –পুরুষের সমতা নিশ্চিতকরণ করা হয়েছে।বছরের শুরুতেই কোমলমতি শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন বই তুলে দিয়ে এক অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করা হয়েছে।কমিউনিটি ক্লিনিকের মাধ্যমে স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করা হয়েছে।সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচীর মাধ্যমে অসহায় ও দুস্থদের সহায়তা করা হয়েছে।
এ সময় তিনি বলেন,বোরহানউদ্দিন –দৌলতখান উপজেলার জনগন আমার বাবা মায়ের মতো।আমি ইতিমধ্যে দু উপজেলায় শতভাগ বিদ্যুৎ সুবিদা নিশ্চিত করছি।দু উপজেলার ২টি কলেজ ও একটি স্কুল সরকারিকরণসহ অসংখ্য স্কুল কলেজ,মাদরাসার অবকাঠামোগত উন্নয়ন,রাস্তা,কালভার্ট,ব্রিজ নির্মাণ করা হয়েছে।অতি শীঘ্রই আমাদের ভোলা-বরিশাল ব্রিজ নির্মাণ হচ্ছে।তখন বোরহানউদ্দিন হবে বাংলাদেশের মধ্যে সেবা উপজেলা।প্রশাসনের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন,কোন সেবা গৃহিতা যেন হয়রানির স্বীকার না হয় সে বিষয়টি আপনাদের খেয়াল রাখতে হবে।তিনি বলেন,আপনাদের একটু সুন্দর ব্যবহারেই মানুষ অনেক খুশি হয়।তিনি মাদকের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্সনীতি গ্রহণের জন্য পুলিশ বাহিনীকে নির্দ্দেশ দেন। অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে ছিলেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আবুল কালাম,পৌর মেয়র রফিকুল ইসলাম,উপজেলা আ’লীগ সভাপতি জসিম উদ্দিন হায়দার,বিভিন্ন দপ্তর প্রধানগন,জনপ্রতিনিধি বৃন্দ।